ভোট ড্যামেজের চেষ্টা! আড়িয়াদহ-কাণ্ড নিয়ে বিস্ফোরক মমতা

কামারহাটির (Ariadaha Case) ত্রাস জয়ন্ত সিংয়ের একের পর এক ভিডিও ভাইরাল সোশ্যাল মিডিয়ায়! ঘটনায় নাম জড়িয়েছে শাসকদলের। যা নিয়ে রীতিমত অস্বস্তিতে তৃণমূল। যদিও এই অবস্থায় জয়ন্ত সিংকে নিয়ে শুরু হয়েছে মদন মিত্র এবং সৌগত রায়ের মধ্যে তোপ-পাল্টা তোপ।

এই অবস্থায় পরিস্থিতি আরও জটিল হয়ে উঠেছে। এবার এই ইস্যুতে প্রথমবার মুখ খুললেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee On Ariadaha Case)।

আগামীকাল শুক্রবার মুকেশ আম্বানির বিয়েতে যোগ দেবেন তৃণমূল সুপ্রিমো। আজ বৃহস্পতিবারই সে রাজ্যের উদ্দেশ্যে উড়ে যান। তার আগে বিমানবন্দরেই সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। যেখানে একাধিক ইস্যুতে কথা বলেন। আর সেখানেই আড়িয়াদহ কাণ্ড (Mamata Banerjee On Ariadaha Case) নিয়ে মুখ খোলেন তৃণমূল সুপ্রিমো। বলেন, তিলকে তাল করে দেখানো হচ্ছে। এই বিষয়ে সংবাদমাধ্যমকেও একহাত নেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর কথায়, ২০২১ সালের একটি ঘটনাকে (Mamata Banerjee On Ariadaha Case) ছড়িয়ে দেওয়া হচ্ছে। আর তা করে ভোট ড্যামেজের চেষ্টা করা হচ্ছে। এই বিষয়ে অর্জুন সিংকেও একহাত নেন। বলেন, তাঁর সময়ে এই সমস্ত ঘটনা ঘটেছে। যদিও পুলিশ আড়িয়াদহের ঘটনায় কড়া পদক্ষেপ নিয়েছে। দোষীরা সবাই জেলে রয়েছেন বলে জানিয়েছেন। প্রয়োজনে এই বিষয়ে নবান্নেও যোগাযোগ করার কথা বলেন খোদ প্রশাসনিক প্রধান।

আর এহেন মন্তব্য ঘিরে শুরু হয়েছে জোর রাজনইরতিক তরজা। ঘটনায় তাঁর নাম নেওয়ায় কার্যত পালটা দিয়েছেন প্রাক্তন বিজেপি সাংসদ। তাঁর দাবি, জয়ন্ত সিং মদন মিত্র ঘনিষ্ঠ। আর আমি সাংসদ ছিলাম বারাকপুরের। কীভাবে আমার নাম উনি আনছেন? প্রশ্ন বিজেপি নেতার। বলে রাখা প্রয়োজন, আড়িয়াদহের ঘটনায় ইতিমধ্যে উত্তাল রাজ্য-রাজনীতি। এই ঘটনায় কাউকে ছাড়া হবে না বলে স্পষ্ট জানিয়েছেন বারাকপুরের পুলিশ কমিশনারেট। অলোক রাজোরিয়া বলেন, আড়িয়াদহের একাধিক ভিডিও ভাইরাল হয়েছে ইন্টারনেট দুনিয়ায়। তাই নিয়ে যথেষ্ট প্রশ্ন উঠেছে সমাজ মাধ্যমে। পুলিশ কাউকে রেয়াত করবে না। প্রত্যেক অভিযুক্তকে গ্রেফতার করা হবে। তাদের উপযুক্ত শাস্তি দেওয়া হবে।

এরপরেই আজ বৃহস্পতিনার পুলিশের জালে জয়ন্ত সিংয়ের আরেক শাগরেদ। ধৃত ব্যক্তির নাম প্রসেন দাস ওরফে লাল্টু। আড়িয়াদহ এলাকায় জয়ন্ত সিং ও তার সঙ্গীরা ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করে রেখেছে দীর্ঘ দিন থেকে৷ ধৃত এই লাল্টু অন্যতম সংযোগী বলে জানা গিয়েছে।

সম্পর্কিত পোস্ট

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *